1. admin@shadhinkantho24.com : shadhinkantho24.com :
ব্রেকিং নিউজ:
কলাপাড়ায় হত্যাচেষ্টা, লুটপাট ও ভাংচুর মামলার প্রধান আসামী মিজান গ্রেফতার কবিতাঃ”তবুও থাকবো “ ঝালকাঠিতে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ফেলোদের ‘নো মাস্ক, নো সেল’ কার্যক্রম নিয়ে সংবাদ সম্মেলন হিজলায় মাছের আরতদারের হামলায় ব্যবসায়ী আহত বরিশাল এয়ারপোর্ট থানা প্রেসক্লাবের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত চলে গেলেন বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের মা বরিশালে আ. লীগ নেতা ইমরান মোল্লার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ বরিশালে মৃত ব্যক্তির নাম ব্যবহার করে প্রতিবেশীর জমি দখল দখলের অভিযোগ ও প্লান বহির্ভূত ভবন নির্মানের অভিযোগ টঙ্গী বিএনপি নেতার মৃত্যু ৪৬ কোটি টাকার ব্রীজের দরপত্রে অনিয়মের অভিযোগে মানববন্ধন
শিরোনাম:
কলাপাড়ায় হত্যাচেষ্টা, লুটপাট ও ভাংচুর মামলার প্রধান আসামী মিজান গ্রেফতার কবিতাঃ”তবুও থাকবো “ ঝালকাঠিতে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ফেলোদের ‘নো মাস্ক, নো সেল’ কার্যক্রম নিয়ে সংবাদ সম্মেলন হিজলায় মাছের আরতদারের হামলায় ব্যবসায়ী আহত বরিশাল এয়ারপোর্ট থানা প্রেসক্লাবের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত চলে গেলেন বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামালের মা বরিশালে আ. লীগ নেতা ইমরান মোল্লার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ বরিশালে মৃত ব্যক্তির নাম ব্যবহার করে প্রতিবেশীর জমি দখল দখলের অভিযোগ ও প্লান বহির্ভূত ভবন নির্মানের অভিযোগ টঙ্গী বিএনপি নেতার মৃত্যু ৪৬ কোটি টাকার ব্রীজের দরপত্রে অনিয়মের অভিযোগে মানববন্ধন

বরিশালে মৃত ব্যক্তির নাম ব্যবহার করে প্রতিবেশীর জমি দখল দখলের অভিযোগ ও প্লান বহির্ভূত ভবন নির্মানের অভিযোগ

  • প্রকাশিত: বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০
  • ৩৮ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বরিশাল নগরীর ২৭ নং ওয়ার্ড ডেফুলিয়া সোনা মিয়ার পুল বাজার সংলগ্ন এলাকায় প্লান বহির্ভূত ভবন নির্মাণ ও প্রতিবেশীর জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় দখলবাজ খলিল খানের বিরুদ্ধে। খলিল খানের প্রতিবেশি রবিউল ইসলাম রিপনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে অবৈধ উচ্ছেদ শাখা হতে তদন্ত সাপেক্ষে দাপ্তরিক নির্দেশনা কে অমান্য করে অবৈধ ভাবে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে প্রতিবেশীর রেকর্ডিয় সম্পত্তি দখল করে প্লান বহির্ভূত ভবন নির্মাণের অভিযোগ রয়েছে চিহ্নিত জমি দখলবাজ খলিল খানের বিরুদ্ধে। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে মৃত রব্বান খানের ছেলে খলিল খান ১৯৮৯ সালে একই এলাকার গনি খানের কাছ থেকে নগরীর নবগ্রাম রোড ডেফুলিয়া সোনামিয়ার পোল বাজারের দক্ষিণ পাশে ৫ শতাংশ জমি ক্রয় করে। জমি দখল করে ভবন নির্মানে ব্যাপারে মো: খলিল মুঠো ফেনে বলেন আমি অবৈধ ভাবে কোনো ভবন তৈরি করি নাই, এবং কার সম্পত্তি দখল ও করিনি। সিটি করপোরেশন থেকে প্লান করিয়েছি। সেখানে এখন ব্যাংক ও দোকান তুলেছি।আমার জমিতে কোন সমস্যা নেই।

এবং ২০১৪ সালে খলিল অত্যান্ত চালাকির সাথে ৩ জন মৃত ব্যক্তির নাম ব্যবহার করে জে এল নং ২৯ খতিয়ান নং ৩৫৪ এর ৮৫০ নং দাগে ৫ শতাংশ সম্পত্তির একটি ভুয়া আপোষ বন্টন নামা তৈরি করে স্থানীয় কাউন্সিলরের সহযোগিতায়। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নির্মাণ শাখা থেকে ৫ শতাংশ জমির উপরে ভবন নির্মাণের প্লান পাস করিয়ে নেন যাহার প্লান নাম্বার ১২৩,ঢ়ঢ় কিন্তু অতন্ত ধুরন্দর স্বভাবের মানুষ হওয়ায় সু কৌশলে দখল বাজ খলিল ক্রয় সূত্রে এবং রেকর্ড মুলে ব্যাক্তিগত ৫ শতাংশ জমির মালিক হলেও জোরপূর্বক প্রতিবেশী মৃত আবদুস ছোবহান খলিফার ২শতাংশ ও অন্য এক জনের ২ শতাংশ জমি অবৈধ ভাবে দখল করে সর্বমোট ৯ শতাংশ জমির উপরে ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করে। ভুমি দস্যু খলিলের জমির সাথে প্রতিবেশী ছোবাহান খলিফার জে এল ২৯নং এর ৪৫৮ নং খতিয়ানে ১২৩৩/১২৩৪ ও ১২৩৬ নং এর ৩ টি দাগে সর্বমোট ৭৭ শতাংশ রেকর্ডিয় সম্পত্তি রয়েছে।

ছোবাহান খলিফার ৩ টি দাগের মধ্যে ১২৩৬ নং দাগ টি ভু্মিদস্যু খলিলের সম্পত্তির কাছে থাকার সুবাদে সেখান থেকে রাতের আধারে চালাকির সাথে ২ শতাংশ জমি দখল করে নেন খলিল। এবং ধুরন্দর খলিল বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ভবন নির্মাণ শাখা থেকে পাশ করা প্লান টি সম্পুর্ন ভাবে উপেক্ষা করে নিজের মন গড়া নিয়মে এবং স্থানীয় ওয়ার্ল্ড কাউন্সিলেরর ক্ষমতার বলে ভবন নির্মান কাজ চালিয়ে যেতে সক্ষম হন। এবং খলিলের মৃত ব্যাক্তিদের নামে ভুয়া বন্টন নামা সহ যাবতীয় কাগজ তৈরি করা একই সাথে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে নির্মাণ শাখা দিয়ে প্লান পাস করার যাবতীয় সহযোগিতা করেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর। ৫ শতাংশ জমির উপরে ভবন নির্মানের প্লান নিলেও পার্সবর্তি ২ জনের রেকর্ডিয় জমি দিয়ে অতিরিক্ত ৪ শতাংশ জমি দখল করে সেই জমিতে ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে দখল বাজ খলিল খান।

খলিল খানের প্লান বহির্ভূত এবং প্রতিবেশীর রেকর্ডিয় সম্পত্তি দখল করে ভবন নির্মাণ করার বিষয়টি স্থানীয় কাউন্সিলর এর কাছে অবহতি করেন মৃত আঃ ছোবাহান খলিফার ছেলে এ্যাডঃ রবিউল ইসলাম রিপন। কিন্তু স্থানীয় কাউন্সিলর বিষয়টি আমলে নেননি অভিযোগ বরং দখল বাজ খলিল খানের কাছ থেকে ব্যক্তিগত সুবিধা নিয়ে ভবন নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়ে দেন। পরবর্তীতে দখল বাজ খলিলের বিরুদ্ধে প্লান বহির্ভূত ভবন নির্মাণের অভিযোগে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের অবৈধ উচ্ছেদ শাখায় একটি ও বিমানবন্দর থানায় ১ টি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মৃত ছোবাহান খলিফার ছেলে এ্যাডঃ রবিউল ইসলাম রিপন।

এ্যাডঃ রবিউল ইসলাম রিপনের দেয়া লিখিত অভিযোগের তদন্ত করেন সিটি কর্পোরেশনের অবৈধ উচ্ছেদ শাখার আর আই রেজাউল কবির এবং সার্ভেয়ার আশ্রাফ। তদন্তে খলিলের ভবন নির্মানে অনিয়ম দৃশ্যমান হয় এবং খলিল কে অবৈধ উচ্ছেদ শাখা থেকে দাপ্তরিক চিঠির মাধ্যমে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার অনুরোধ যানান। কিন্তু খলিল নিয়ম নিতি অগ্রাহ্য করে এবং স্থানীয় কাউন্সিলর বিষয়টি দেখবে বলে যানিয়ে দেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্বরত ব্যাক্তিদের। পরবর্তীতে এ্যাডঃ রবিউল ইসলাম রিপনের বিমান বন্দর থানায় করা অভিযোগের তদন্ত করতে আসা এস আই দিপায়ন নির্মাণ কাজে একই অনিয়ম দেখতে পান এবং খলিল কে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার অনুরোধ যানান।

কিন্তু দাপ্তরিক নিতিমালা এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নির্দেশনার ধার ধারেননি দখল বাজ খলিল, একমাত্র স্থানীয় কাউন্সিলরের পাওয়ারে সব ধরনের আইনি নির্দেশনা উপেক্ষা করে কাউন্সিলরের সহযোগিতায় এখন পর্যন্ত নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছেন খলিল। নবগ্রাম রোডের সোনা মিয়ার পুল বাজারে একাধিক ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠানের মালিক ও সাধারণ লোকদের কাছে এই বিষয়ে জানতে চাইলে। একাধিক ব্যাক্তি একই ধরনের কথা বলেন। দ্বিতীয় মেয়াদে কাউন্সিলর হওয়ার সুবাদে এবং বি এন পি জামাতের রাজনীতি দিয়ে নিজেকে মুক্ত করার লোক্ষ নিয়ে ক্ষমতাসীন দলে যোগদানের পরেই আগের চেহারা পাল্টে যায় স্থানীয় কাউন্সিলরের।

একই সাথে ক্ষমতার অপ ব্যাবহার করে অন্যায় ভাবে ব্যাক্তিগত সম্পদের মালিক হওয়ার মিশন শুরু করেন স্থানীয় কাউন্সিলর। ভুমি দস্যু খলিল খান দাপুটে কাউন্সিলরের মুরিদ হওয়ায় একইভাবে আইনের বিধি বিধান তোয়াক্কা না করে স্থানীয় কাউন্সিলরের ক্ষমাতার দাপট দেখিয়ে বে-আইনি কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন বলে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয়রা। একাধিক সুত্রে যানা যায় ভুমি দুস্যু খলিলের সামনে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়ে আছে স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের কাউন্সিলর যা দেখার কেউ নেই। সোনা মিয়ার পুল বাজারের ব্যাবসায়ীদের অনেকে যানান খলিলের কাছদিয়ে ব্যাক্তিগত ভাবে আর্থিক সুবিধা নিয়েই এমন অবৈধ ভবন নির্মাণে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন কাউন্সিলর।

যদি এভাবেই চলতে থাকে এরচেয়ে বড় ধরনের ক্ষতি হওয়ার ধারনা করেন স্থানীয় সাধারন মানুষ। খলিল খানের এমন বেপরোয়া দখল সন্ত্রাসী ও আইন অমান্য কারির বিরুদ্ধে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের অবৈধ উচ্ছেদ শাখার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তার সু দৃষ্টি কামনা করে যথাযথ আইনী ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী স্থানীয় সাধারণ মানুষ।

FacebookTwitterShare

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
স্বাধীনকণ্ঠ ২৪ © স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় CFSK24